ড. মিজানুর রহমান আজহারীর ‘ রমজান ফুড প্যাক’ খাবার পৌঁছে দিবে দেশের অসহায় মানুষের ঘরে।

ড. মিজানুর রহমান আজহারীর ‘ রমজান ফুড প্যাক’ খাবার পৌঁছে দিবে দেশের অসহায় মানুষের ঘরে।
Spread the love

করোনাভাইরাসের কারণে দেশে চলতেছে লকডাউন।এই সময়ে দেশের খেটে খাওয়া মানুষ দিন পার করছে অসহায়ত্বের মধ্যে। সামনে রমজান তাই মানুষ আরো বেশি উদ্বিগ্ন। কত দিন চলবে এই অবস্থান কেউ বলতে পারেনা। তবে রমজানে খেটে খাওয়া এই সব মানুষের পাশে দাঁড়ালেন ড. মিজানুর রহমান আজহারী।

তার উদ্যোগে ‘ রমজান ফুড প্যাক – ২০২০’ এই তহবিল গঠন করা হয়েছে। এই তহবিলের অর্থ দিয়ে দেশের ৮টি বিভাগের ৩৫ জেলায় পৌঁছে দেওয়া হবে রমজানের খাবার।

ড.মিজানুর রহমান আজহারী বর্তমান মালেশিয়ায় অবস্থান করছেন। গত ১০ এপ্রিল তাঁর ভেরিফাই ফেসবুক পেজে এক বার্তা দিয়ে সবাই এই তহবিল গঠনের উদ্দেশ্য জানান এবং এই তহবিলে দেশ ও দেশের বাইরের বিত্তবানদের অর্থ দান করে সাহায্যের আহবান জানান। আবার পর দিন ১১ এপ্রিল ফেসবুক লাইভে এসে বিষটি নিশ্চিত করে বলেন যারা সাহায্য করতে ইচ্ছুক আগামী সাত দিনের মধ্যে তহবিলে অর্থ দিয়ে এগিয়ে আসবেন দেশের এই দূঃসময়ে।

তার কথা মত আজ ১৭ এপ্রিল শেষ দিন ছিল। আজ রবিবার বিকালে এক ফেসবুক বার্তা দিয়ে জানান, আলহামদুলিল্লাহ… ” রমজান ফুড প্যাক” এর তহবিল সংগ্রহের জন্য আমরা সাত দিনের সময়সীমা বেঁধে দিয়েছিলাম। এই সাতদিনে আমাদের সবার দেয়া দানের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৭১ লাখ ২৫ হাজার টাকা “

তিনি আরো বলেন আপনাদের এই দেয়া অর্থ দিয়ে দেশের ৮টি বিভাগের ৩৫টি জেলায় খেটে মানুষের মাঝে ‘ রমজান ফুড প্যাক ‘ পৌঁছে দিচ্ছি। বেশিরভাগ জেলাতেই ইতিমধ্যে এই খাদ্য পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। বাকী জেলাগুলোতেও রমজানের আগেই পৌঁছে দেওয়া হবে।

মিজানুর রহমান আজহারি আরো জানান, এই ফুড প্যাকের ভিতরে কি কি খাদ্য দ্রব্য দেওয়া হবে,।” চাল ৫ কেজি, ডাল ২ কেজি, আলু ২ কেজি, পেঁয়াজ ২ কেজি, তেল ২ কেজি, ছোলা ১ কেজি, চিনি ১ কেজি, লবণ ১ কেজি, মুড়ি ৫০০ গ্রাম, খেজুর ৫০০ গ্রাম এবং ডেটল সাবান ২টি।

তিনি বলেন, আমি দেশর বাহিরে থাকলে সবসময় এটার রাখতেছি এবং তদারকি করতেছি। এই ফুড প্যাকে যারা স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে মানুষের কাছে এই খাদ্য পৌঁছে দিচ্ছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

উল্লেখ্য ড. মিজানুর রহমান আজহারি এই মূহুর্তে বাংলাদেশের সবথেকে জনপ্রিয় ইসলামি চিন্তাবিদ। উনার কথা বার্তা দেশের যুবসমাজ সবথেকে বেশি শুনে।

admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *