মৌমাছির সাথে বসবাস, নাম উঠল গিনেস বুক রেকর্ডে

মৌমাছির সাথে বসবাস, নাম উঠল গিনেস বুক রেকর্ডে
Spread the love

পৃথিবীতে এমন এমন কিছু অবাক করা কান্ড ঘটে যা কল্পনাকেও হার মানায়। অবাক পৃথিবীতে কিছু কিছু মানুষের কাজ এতটাই অবাক হয়ে দেখতে হয় যা আপনার কল্পনা শক্তিকেও হার মানাবে। এবার তেমন এক অবাক করা কান্ড দেখল দুনিয়া। মৌমাছির সঙ্গে বন্ধুত্ব গড়ে গিনেস রেকর্ডস বুকে নাম তুললেন ভারতীয় এক তরুণ।

মৌমাছির হুলের ভয় কার না আছে; অথচ সেই ভীতিকর পতঙ্গের সঙ্গেই রীতিমত বন্ধুত্ব গড়ে তুলেছেন ভারতের কেরালার এক তরুণ। শুধু তাই নয়, মৌমাছির পালকে চার ঘন্টা মাথায় ও মুখে নিয়ে বসে থেকে গিনেস রেকর্ডস বুকে নামও তুলে নিয়েছেন নেচার এমএস।

পতঙ্গপ্রেমী ওই তরুণের পুরো মুখ আর মাথায় মৌমাছির পাল ৪ ঘন্টা ১০ মিনিট ৫ সেকেন্ডস বসেছিলে বলে জানিয়েছে ভারতের গণমাধ্যম এনডিটিভি।

ডেইলি মেইলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে নেচার বলেছেন, মৌমাছি আমার প্রিয় বন্ধু। আমার ইচ্ছা অন্যরাও তাদের বন্ধু বানাক। বাবার সঙ্গে থেকেই মৌমাছির সঙ্গে বসবাস করার কৌশল রপ্ত করেছি। ছোটবেলা থেকেই মৌমাছিকে নিয়ে খেলাধুলা করেছি। সাত বছর বয়স থেকেই তাদের মুখ ও মাথায় নিয়ে ঘুরে বেড়াই।

এখন অনায়াসে ৬০ হাজার মৌমাছিকে মাথায় ও মুখে বসতে দিতে পারেন ওই তরুণ।

নেচারের দাবি, সমাজের বাস্তুতন্ত্র ঠিক রাখতে মৌমাছির ভূমিকা অসামান্য। তারা সমাজবদ্ধ জীবও বটে। তাই তাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব রেখে চললে মানুষেরই লাভ।

জানা গেছে, নেচারের বাবা সূর্যকুমার একজন পুরষ্কারপ্রাপ্ত মধু চাষী। ২ বছর আগে একইভাবে মৌমাছি সংরক্ষণ ও মধু চাষে সচেতনতা বাড়িয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়েছিলেন নেচার।

admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *