আয়া সোফিয়াতে ৮৬ বছর পর শোনা গেল আজানের ধ্বনি

আয়া সোফিয়াতে ৮৬ বছর পর শোনা গেল আজানের ধ্বনি
Spread the love

তুরস্কের ইস্তাম্বুলের প্রসিদ্ধ আয়া সোফিয়া জাদুঘরকে মসজিদ বলে ঘোষণা করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। গত ১০ জুলাই তুরস্ক আদালত এই রায়টি প্রদান করে। তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান আয়া জাদুঘরকে মসজিদে রূপান্তরের নির্বাহী আদেশে সই করেছেন।

তিনি বলেছেন এখন থেকে আয়া সোফিয়া এখন থেকে তুরস্কের ধর্মীয় বিষয়ক দফতরের সম্পদ। এর পর প্রায় ৮৬ বছর পর ফের আজান দেওয়া হয়। তুরস্কের ‘হাবাব টিভি’ সহ অনন্য টেলিভিশনেও আজানের দৃশ্য সম্প্রচার করা হয়। পরবর্তীতে টেলিভিশনে দেয়া ভাষণে এরদোয়ান জানান, ২৪ জুলাই থেকে আয়া সোফিয়ায় নামাজ আদায় করা যাবে। তবে সবার প্রার্থনার জন্য উপযোগী করে তুলতে ছয় মাস সময় লাগবে।

এরদোয়ান বলেন আমাদের অন্য সব মসজিদের মত আয়া সোফিয়া স্থানীয় বা বিদেশি, মুসলিম বা অমুসলিম সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। ডয়েচ ভেলে জানিয়েছে, তুরস্কের জনগণ এই রকম সিদ্বান্তের জন্য তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ এরদোয়ানকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

প্রতিষ্ঠকাল থেকে আয়া সোফিয়ার ইতিহাস আজ অবধি বেশ বৈচিত্র্যপূর্ণভাবে আবর্তিত হয়ে আসছে।

৩৬০ খ্রিস্টাব্দে সর্বপ্রথম এটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন রোমান সাম্রাজ্যের প্রথম খ্রিষ্টান সম্রাট কনস্টান্টিনোপল। বর্তমান কাঠামো তৈরি করেন সম্রাট জাস্টিনিয়ান। প্রতিষ্ঠার পর থেকে ১২০৪ সাল পর্যন্ত আয়া সোফিয়া ছিল ইস্টার্ন অর্থডক্স ক্যাথিড্রাল। ১২০৪ সাল থেকে ১২৬১ সাল পর্যন্ত রোমান ক্যাথলিক চার্চ, ১২৬১তে এটি আবার ইস্টার্ন অর্থডক্স ক্যাথিড্রাল ফিরে আসে এবং ১৪৫৩ সাল পর্যন অর্থডক্স গির্জা হিসেবেই বহাল ছিল আয়া সোফিয়া।

অতঃপর ঘটনাবহুল ঐতিহাসিক এক যুদ্ধে ইস্তাম্বুল জয়ের সময় এটিও জয় করেন উসমানি খলিফা সুলতান মুহাম্মদ আল ফাতিহ। এরপরই এটিকে মসজিদে রূপান্তর করা হয়।

ঐতিহাসিক সূত্রের বরাতে আল জাজিরা জানায়, সুলতান মুহাম্মদ আল ফাতিহ ইস্তাম্বুল জয় করার পর যাজকদের কাছ থেকে আয়া সোফিয়া বিক্রি করার আবেদন জানান এবং যাজকরা রাজী হলে নিজের টাকায় গির্জাটি ক্রয় করেন।

তিনি বিজয়ী হিসেবে গির্জাটি ছিনিয়ে নিতে পারতেন, রাষ্ট্রীয় টাকায় কিনতে পারতেন, কিন্তু সেসব না করে করে চুক্তিনামা করে নিজের টাকায় গির্জাটি ক্রয় করে নেন। এখনও সেই ঐতিহাসিক চুক্তিনামা সংরক্ষরিত রয়েছে। ইউনেস্কোর হেরিটেজ সাইটে এর নাম রয়েছে।

admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *