সেরা সাফল্যে টাইগার যুবারা সেমিফাইনালে – ICC U19 World Cup 2020!

যুব বিশ্বকাপ ২০২০ এর কোর্য়াটার ফাইনালে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা যুবাদের ১০৪ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে সাকিব, তামিম, রাকিবুলরা সেমিফাইনালে জায়গা করে নিল।

টসে হের ব্যাট করতে নেমে তামিম-ইমনের ৬০ রানের যুগলবন্দী জয়ের আশার বাণীটা দেখিয়ে গিয়েছিল। ১৭ রান করে ইমন ফিরে গেলে ও জুনিয়র তামিমের ব্যাট যেন কথা বলছিল তুমুল বেগে, হয়ত মনে মনে পণ করে নিয়েছিলেন যে “ওহে বিশ্ববাসী এসেছি ১৬ কোটি মানুষের ভালোবাসা নিয়ে ফিরতে চাইনা খালি হাতে”। ৮০ রান করে তামিম ফিরে গেলে ও তাওহিদ হৃদয় এবং শাহাদাত দলকে নিরাপদ নিয়ে গেছেন বড় সংগ্রহ এর পথে, ওদের ব্যাটিং দিয়েছে মনের প্রশান্তি বাড়িয়েছে আত্নবিশ্বাসের পারদ। ওদের ১০২ রানের জুটি দিয়েছে বড় সংগ্রহের ভিত্তি। শেষের দিকে শাহাদাত যে রকম গতিতে ব্যাট চালিয়েছেন মনে হয়ছে উনি বুঝিয়ে দিয়েছেন আমি ধীরে ধীরে যেমন ইনিংস গড়তে জানি তেমনি প্রয়োজনে কজ্বির জোর দিখিয়ে ইনিংস ও বড় করতে জানি, তাঁর ৭৪ রানের নান্দনিক ইনিংসে ভর করে ২৬২ রানের লড়াকু পুঁজি পায় বাংলাদেশ।

২৬২ রানের লক্ষে ব্যাট করতে নেমে দক্ষিণ আফ্রিকা যুবাদের যেন উইকেটে দাঁড়াতেই দেয়নি টাইগার বোলাররা। ওপেনিং জুটিটাকে একটু ও বড় করতে দেননি তানজিম হাসান সাকিব, ওর গতি আর সুইয়েং পরাস্ত হয়ে উইকেট বিলিয়ে দেন আফ্রিকান ওপেনার।শরিফুল, সাকিব এর গতির আর সুইংয়ের কারসাজি আফ্রিকান যুবাদের যেন নাবিশ্বাস করে তুলেছিল। অধিনায়ক আকবর আলি যখন রাকিুবুল হাসানের হাতে বল তুলে দিয়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার সর্বনাশ তখনই শুরু। রাকিবুল এর বাম হাতের স্পিনিং ফিঙার যেন উইকেটের নেশার যেন পাগল হয়ে গিয়েছিল।রাকিবুলের মনে হয়ত “আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালোবাসি ” এই গানটাই বেঁজে উঠেছিল আর বলছিলেন এসেছে আমরা লাল সবুজ পতাকাটাকে শীর্ষে নিয়ে যেতে হার মানতে নয়।

তাঁর ৫ উইকেট স্বীকার দক্ষিণ আফ্রিকানদের ম্যাচ থেকে ছিটকে দেয়। রাকিবুল এর ৫ উইকেটের এর সাথে তানজিম সাকিবের ২টা,শরিফুল,শামিম এর ১টা করে উইকেট স্বীকার দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংস শেষ হয়ে যায় ১৫৮ রানেই।১০৪ রানের ঐতিহাসিক জয়ে বাংলাদেশের যুবারা সেমিফাইনালে পৌঁছে গেছে।ম্যাচ সেরা হয়েছেন ৫ উইকেট নেওয়া রাকিবুল হাসান।টাইগার যুবাদের এই জয়ে উচ্ছ্বসিত গোটা বাংলাদেশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *